Sports Bangla

২০০৫ সালের পর…

২০০৫ সালের পর…

২০০৫ সালের পর…
জুলাই ১৯
১৭:২০ ২০১৫

Milestone-wedding-1-main colorজয়ের জন্য দরকার ৫০৯ রান। যা করতে হলে ইংল্যান্ডকে গড়তে হতো নতুন রেকর্ড। কিন্তু লর্ডসে অ্যাশেজ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে সেই দুরুহ কাজটি করতে পারেনি ইংলিশ শিবির। অনুমিতভাবে বিশাল ব্যবধানে জিতেছে অস্ট্রেলিয়াই।

জয়ের ব্যবধান ৪০৫ রানে। লর্ডসে ২০০৫ সালের পর এই প্রথম জয় পেল অসি শিবির। সেই সঙ্গে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-১ ব্যবধানে সমতাও আনল মাইকেল ক্লার্ক বাহিনী। কার্ডিফে প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ড জিতেছিল ১৬৯ রানে।

প্রথম ইনিংসে দুই দলই বেশ লড়াকু মেজাজে ছিল। স্মিথের ডাবল সেঞ্চুরি (২১৫) ও রজার্সের (১৭৩) সেঞ্চুরি বদৌলতে ৮ উইকেটে ৫৬৬ রানে ডিক্লেয়ার দেয় অস্ট্রেলিয়া। এই ইনিংসে ইংল্যান্ডের হয়ে চারটি উইকেট নেন ব্রড, দুটি রুটের।

ambiagroupজবাবে প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৩১২ রান। ৯৬ রানে নার্ভাস নাইনটিজের শিকার অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক। ৮৭ রানে মার্শের শিকার স্টোকস। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে হ্যাজলউড ও জনসন নেন তিনটি করে উইকেট।

২৫৪ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসের ব্যাট শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। লিড বড় বানাতে বেশী কষ্ট করতে হয়নি সফরকারীদের। দুই উইকটে ২৫৪ রান করেই ইনিংস ডিক্লেয়ার করে অস্ট্রেলিয়া। সব মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়ার রান দাঁড়ায় ৫০৮ রানে। এ নিয়ে রেকর্ড ২৭ বার প্রতিপক্ষকে ৫০০‘র উপরে টার্গেট দিল অস্ট্রেলিয়া। এর মধ্যে ২৬টিতেই জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া, বাকি এক ম্যাচে ড্র।

চতুর্থ দিনে ৫০৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১০৩ রানেই গুটিয়ে যায় ইংল্যান্ডের ইনিংস। অসি পেস বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতে পারেনি কোন ইংলিশ ব্যাটসম্যানই। সর্বোচ্চ ২৫ রান করেন পেসার ব্রড। বাকিদের রান ছিল ২০এর নিচে।

এই ইনিংসে তিন উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার জয় ত্বরান্বিত করেন পেসার জনসন। সব মিলিয়ে তার উইকেট সংখ্যা ৬টি। তবে ম্যাচ সেরা হয়েছেন দুই ইনিংসে মোট ২৭৩ রান করা অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ।

explore

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০