Sports Bangla

সব রেকর্ডকে ছাড়িয়ে…

সব রেকর্ডকে ছাড়িয়ে…

সব রেকর্ডকে ছাড়িয়ে…
আগস্ট ০৬
১৩:১৯ ২০১৫

Milestone-wedding-1-main colorপ্রয়োজন ছিল মাত্র ১ উইকেট। তাহলেই পঞ্চম ইংলিশ বোলার হিসেবে ৩০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলবেন তিনি। কিন্তু নটিংহ্যামের ট্রেন্টব্রিজে একি আগুন নিয়ে হাজির হলেন স্টুয়ার্ট ব্রড। অস্ট্রেলিয়ার জন্য রীতিমত ‘সাক্ষাৎ’ জম। প্রথম ওভার থেকেই দুঃস্বপ্ন হয়ে হাজির হলেন ইংলিশ পেসার।

ক্রিস রজার্সকে জীবনে প্রথমবারেরমত শূন্য রানে আউট হওয়ার স্বাদ দিলেন। একই সঙ্গে জেমস এন্ডারসন, ইয়ান বোথাম, বব উইলিস, ফ্রেড ট্রুম্যানের পর পঞ্চম ইংলিশ বোলার হিসেবে ছুঁয়ে ফেললেন টেস্ট ক্রিকেটে ৩০০ উইকেটের মাইলফলক। ওভারের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অসিদের উইকেট তুলে নিতে থাকেন ব্রড। শেষ পর্যন্ত আটজন অসি ব্যাটসম্যানের প্রান সংহার করেন তিনি।

Exploreউইকেটের তৃষ্ণা কিন্তু ওখানেই থেমে থাকেনি ব্রডের। ক্রিস রজার্সকে আউট করে যে উইকেট শিকারে মেতে উঠলেন, তাতে রীতিমত মাইকেল ক্লার্ককে কাঁদিয়ে ছাড়লেন তিনি। একের পর এক ব্রডের হাতে প্রাণ হারাতে থাকে ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা। এরপর স্টিভেন স্মিথ, শন মার্শ মাইকেল ক্লার্ক, অ্যাডাম ভোজেস, মিচেল স্টার্ক, মিচেল জনসন এবং নাথান লিওনের উইকেট তুলে নেন তিনি। ব্রডের পেস আগুনে রীতিমত কাঁপতে শুরু করে অসি সাম্রাজ্য।

প্রথম ওভারেই রজার্স আর স্মিথের উইকেট তুলে নেন ব্রড। তৃতীয় বলে আউট হন রজার্স। ওভারের শেষ বলে আউট হন টেস্ট র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকা স্টিভেন স্মিথ। ব্রডের দ্বিতীয় ওভারে আউট হলেন শন মার্শ। তৃতীয় ওভারে ভোজেস, চতুর্থ ওভারে ক্লার্ক, ৭ম ওভারের চতুর্থ বলে মিচেল স্টার্ক, ৬ষ্ঠ বলে মিচেল জনসন এবং  ১০ম ওভারের তৃতীয় বলে আউট হলেন নাথান লিওন।

ambiagroupমাঝে অবশ্য ভাগ বসিয়েছেন মার্ক উড আর স্টিভেন ফিন। এরা দু’জন তুলে নেন ডেভিড ওয়ার্নার আর পিটার নেভিলের উইকেট। ব্রডের তোপের মুখে শেষ পর্যন্ত ১৮.৩ ওভার ব্যাট করে মাত্র ৬০ রানেই অলআউট হয়ে গেলো অস্ট্রেলিয়া। আর ব্রডের বোলিং ফিগার দাঁড়ালো ৯.৩-৫-১৫-৮।

ক্যারিয়ারে এ নিয়ে ৮৩তম টেস্ট খেলছেন ব্রড। আগের ৮২টি টেস্টে ১৫০ ইনিংসে বল করার সুযোগ পেয়েছেন। ক্যারিয়ার সেরা ছিল ৪৪ রানে ৭ উইকেট। গড় ২৯.৬৭ করে। এবার আগের সব রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেলেন। করলেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। ১৫ রানেই নিলেন ৮ উইকেট।

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এক ইনিংসে সর্বনিম্ন রানের রেকর্ডটি নিউজিল্যান্ডের। ১৯৫৫ সালে ইডেন পার্কে এই লজ্জার রেকর্ড গড়েছিল নিউজিল্যান্ড ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে। পরের তিনটি রেকর্ডই দক্ষিণ আফ্রিকার (৩০, ৩০, ৩৫ রান)। কাকতালীয়ভাবে প্রতিপক্ষ সেই ইংল্যান্ড। এরপরই অস্ট্রেলিয়ার সেই করুণ রেকর্ড। ১৯০২ সালে এজবাস্টনে ৩৬ রানে অলআউট অস্ট্রেলিয়া। যা অসিদের টেস্টে সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড। প্রতিপক্ষ সেই ইংল্যান্ডই।

Kwality (1)দীর্ঘ ১১৩ বছর পর এজবাস্টনের সেই স্মৃতি উঁকি দিচ্ছিল ট্রেন্ট ব্রিজে। না জানি সেই লজ্জার রেকর্ড আজ অস্ট্রেলিয়া ভেঙ্গেই ফেলে। প্রতিপক্ষ কিন্তু সেই ইংল্যান্ডই। ২৯ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো কাঁপছিল অস্ট্রেলিয়া। তবে অল্পের জন্য লজ্জার সেই রেকর্ড আর হয়নি। অ্যাশেজের চতুর্থ টেস্টের প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার রান গিয়ে ঠেকেছে ৬০ রানে। অস্ট্রেলিয়া ওভার খেলেছে মাত্র ১৮.৩। ম্যাচের প্রথম দিনের লাঞ্চের আগেই অলআউট অস্ট্রেলিয়া। প্রথম দিনে লাঞ্চের আগে অলআউট হওয়ার লজ্জা একবারই হয়েছিল তাদের, সেটিও ১৮৯৬ সালের জুনে। অর্থাৎ​ ১১৯ বছরে এমন লজ্জায় কখনোই পড়েনি অস্ট্রেলিয়া! বলের হিসাবে পঞ্চম দ্রুততম সময়ে অলআউট হওয়ার ঘটনা এটি। ম্যাচের প্রথম ইনিংসে এত দ্রুততম সময়ে কেউই অলআউট হয়নি। ১৮৯৬ সালে অলআউট হওয়ার সেই ইনিংসটাতেও অস্ট্রেলিয়া খেলেছিল ১১৩ বল, আজ খেলল মাত্র ১১১টি!

৬০ রানে অলআউট হয়ে কিছু লজ্জার রেকর্ডই গড়েছে অস্ট্রেলিয়া। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে অস্ট্রেলিয়ার এটি সপ্তম সর্বনিম্ন স্কোর। আবার ২১ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারানোর ঘটনা অস্ট্রেলিয়া দেখল প্রায় ৭৫ বছর পর। এর আগে ৬০ রানে আরও একবার অলআউট হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। সেটা ১৮৮৮ সালে। ভেন্যু লর্ডস। প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড। কিন্তু মজার ব্যাপার, ঐ টেস্টে ৬১ রানে জিতেছিল অস্ট্রেলিয়াই। কারণ ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ৫৩ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৬২ রানে অলআউট হয়েছিল। আর প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া ১১৬ রান করার সুবাদে ম্যাচ জিতে নেয়। ৬০ রানের আগে ছয়বার অলআউট হয়েছে অস্ট্রেলিয়া (৩৬, ৪২, ৪৪, ৪৭, ৫৩, ৫৮)। এর মধ্যে পাঁচবারই অস্ট্রেলিয়ার প্রতিপক্ষ ছিল ইংল্যান্ড, একবার দক্ষিণ আফ্রিকা।

অ্যাশেজ সিরিজের চতুর্থ টেস্টের প্রথম দিন শেষে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২১৪ রানের লিড নিয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। প্রথম ইনিংসে মাত্র ৬০ রানে অলআউট হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। জবাবে দিন শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৭৪ রান তুলেছে স্বাগতিকরা। ব্যক্তিগত ১২৪ রান নিয়ে অপরাজিত রয়েছেন জো রুট। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি। অন্যদিকে, মার্ক উড অপরাজিত রয়েছেন ২ রানে।

 

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০