Sports Bangla

রোনালদোর দলে সেই শিশুটি

রোনালদোর দলে সেই শিশুটি

রোনালদোর দলে সেই শিশুটি
জুলাই ০৩
০৫:৫৫ ২০১৫

Kwality (3)২০০৪ সালের ভয়ঙ্কর সুনামিতে বেঁচে যাওয়া ইন্দোনেশিয়ার এক ছেলের ফুটবলার হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে দিয়ে অনুপ্রাণিত সেদিনের সেই ছোট্ট শিশুকে দলে নিয়েছে পর্তুগিজ ফুটবল ক্লাব স্পোর্তিং লিসবন। বর্তমানে ১৭ বছর বয়সী মারতুনিসকে ক্লাব স্পোর্তিং তাদের যুব অ্যাকাডেমিতে খেলার সুযোগ দিয়েছে। এই ক্লাবেই ক্যারিয়ার শুরু করেন বর্তমানে রিয়াল মাদ্রিদে খেলা তিনবারের বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জেতা রোনালদো।

১১ বছর আগে ইন্দোনেশিয়ার উত্তরাঞ্চল বান্দা আচেহতে সুনামি আঘাত হানলে প্রায় ২ লাখ ৩০ হাজারের বেশি মানুষ মারা যায়। ওই সময় ৭ বছর বয়সী মারতুনিস হারায় তার বাবা-মা ও দুই ভাই-বোনকে। ভয়ঙ্কর ওই সুনামিতে একটি সোফা ধরে বেঁচে থাকা মারতুনিস একটি সমুদ্র সৈকতে ২১ দিন পড়ে ছিল। যখন তাকে পাওয়া যায় তখন তার গায়ে ছিল পর্তুগালের সাবেক তারকা রুই কস্তার জার্সি। পর্তুগালের গণমাধ্যমগুলোর খবরের শিরোনাম হয় ঘটনাটি। ওই সময় সে বলেছিল, “আমি একটুও ভীত ছিলাম না, কারণ আমি আমার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে এবং ফুটবলার হতে বাঁচতে চেয়েছিলাম।”

ambiagroupমারতুনিসের মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করার গল্প থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে পর্তুগিজ ফুটবল সংস্থা তার বাড়ি আবারও তৈরি করতে ৪০ হাজার ইউরো সাহায্য করেছিল। আর ২০০৫ সালে রোনালদো আচেহতে তার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে তার পড়ালেখার খরচ দেওয়ার কথা দেন। সেই সঙ্গে মারতুনিসকে স্পোর্তিং লিসবনে আসার আমন্ত্রণ জানান রোনালদো।

সুনামির আঘাত থেকে মারতুনিসের বেঁচে যাওয়ার গল্প শুনে ওই সময় রোনালদো বলেছিলেন, “তাকে অবশ্যই আমাদের সম্মান করা উচিত। সে যা করেছে, তা শক্তি আর পরিপক্কতার প্রমাণ দেয়। সে বিশেষ এক শিশু।”

স্পোর্তিংয়ে খেলার সুযোগ পেয়ে দারুণ খুশি মারতুনিস। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “এখানে আসতে পারাটা দারুণ, এই ক্লাব আমার স্বপ্ন সত্যি করেছে। এই সুযোগ পেয়ে আমি খুব রোমাঞ্চিত।”

explore

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০