Sports Bangla

বিশ্বকাপ ১০, টি-২০ ১৬ দলের!

বিশ্বকাপ ১০, টি-২০ ১৬ দলের!

বিশ্বকাপ ১০, টি-২০ ১৬ দলের!
ফেব্রুয়ারি ২৪
০৩:০৪ ২০১৫

royal-magnum_bigএবারের বিশ্বকাপ খেলছে ১৪টি দল। ২০১৯ বিশ্বকাপে সেটা আর থাকছে না। চারটি দল কমে ওই বিশ্বকাপে খেলবে মোট ১০টি দল। আইসিসির যুক্তি আরও বেশি প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতেই নাকি তাদের এই সিদ্ধান্ত। ক্রিকেট এমনিতেই খেলে গুটি কয়েক দেশ। ফুটবল বিশ্বকাপে যত দেশ খেলে তার অর্ধেকও খেলে না ক্রিকেট বিশ্বকাপে। আইসিসির এই হঠকারী সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে সেটা হবে ক্রিকেট বিশ্বায়নের পথে বড় বাধা। নিরুৎসাহিত হয়ে পড়বে আইসিসির সহযোগী দেশগুলো। ওয়ানডে বিশ্বকাপ ১০ দলের হলেও টি-২০ বিশ্বকাপে দলের সংখ্যা নাকি হবে ১৬। যা এক প্রকার চূড়ান্তই।

আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসনের ভাষায়, বিশ্বকাপে প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়াতেই নাকি এমন সিদ্ধান্ত। তিনি বলেছেন,  ‘বিশ্বকাপ ক্রিকেটে আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়াতে হবে। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে, যে ১০টি দল বিশ্বকাপে খেলবে, সেই দলগুলোর যেন প্রতিটিই বিশ্বকাপ জয়ের উপযোগী হয়। তারা যেন প্রতিটি প্রতিটিকে হারাতে পারে।’

FMC-Sports-logo-300x133উদাহরণ হিসাবে রিচার্ডসন টেনে এনেছেন ১৯৯২ বিশ্বকাপ, ‘বিরানব্বই বিশ্বকাপকে এখন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত সবচেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ বিশ্বকাপ হিসেবে ধরা যায়। সেবার অংশগ্রহণকারী নয়টি দেশ প্রত্যেকেই প্রত্যেকের মুখোমুখি হয়েছিল লিগ পদ্ধতিতে। রাউন্ড রবিন লিগ পর্বের শেষ পর্যায়ে এসেও বোঝা যাচ্ছিল না কোন চারটি দেশ সেমিফাইনালে খেলবে। আমরা বিশ্বকাপে ঠিক এ ধরনের প্রতিদ্বন্দ্বিতাই সৃষ্টি করতে চাই।’

Exploreসবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হবে আয়ারল্যান্ড, আফগানিস্তান, স্কটল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাতের মতো দেশগুলো। যারা প্রতিনিয়ত উন্নতি করে যাচ্ছে। যার প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে চলতি বিশ্বকাপেও। এখন আর ছোট দলগুলোকে ঠিক ছোট লাগছে না! তার প্রমাণ তো আছে হাতের নাগালেই। আয়ারল্যান্ড প্রথম ম্যাচেই হারিয়ে দিয়েছে দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। জিততে না পারলেও আফগানরা কাঁপিয়ে দিয়েছে লংকানদের।

তবে আইসিসির সহযোগী দেশগুলো পাশে পাচ্ছে ক্রিকেট কিংবদন্তী শচীন টেন্ডুলকারকে। যিনি এবারের বিশ্বকাপের ব্রান্ড অ্যাম্বাসেডর। টেন্ডুলকার আইসিসির এই সিদ্ধান্তকে একহাত নিয়ে সহযোগী দেশগুলোর পক্ষে কথা বলেছেন। তার ভাষায়, ‘ আইসিসির নতুন এই সিদ্ধান্ত ক্রিকেটের বিশ্বায়নের পথে বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে। আয়ারল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, আফগানিস্তানের মতো উঠতি ক্রিকেট শক্তির বিকাশ থেমে যাবে। বড় কথা, ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহী অনেক দেশই খেলাটিতে বিনিয়োগ করা থেকে নিরুৎসাহিত হবে।’

এটা হলে ক্রিকেটের ক্ষতিই হবে। প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়ানোর নামে এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে কিভাবে ছোট দেশগুলোকে ক্রিকেট উন্নয়নে সাহায্য করা যায় টেন্ডুলকার সে পরামর্শই দিয়েছে আইসিসিকে, ‘ বিশ্বকাপে দল কমিয়ে আনাটা ঠিক হবে না। আইসিসির উচিৎ তথাকথিত দুর্বল দলগুলোর শক্তি বৃদ্ধি করা। তারা যেন আরও বেশি সুযোগ পায়। টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়া দেশগুলো যদি নিয়মিত আয়ার‌্যাল্ড, আফগানিস্তান, হল্যান্ড এবং স্কটল্যান্ডের মতো দেশগুলোতে ‘এ’ দলগুলো পাঠায় তাহলে তাদের ক্রিকেট উন্নয়নে দারুন সহায়ক হবে।’

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০