Sports Bangla

বিরল কৃতিত্ব

বিরল কৃতিত্ব

বিরল কৃতিত্ব
জানুয়ারী 18
19:30 2015

royal-magnum_bigজোহানেসবার্গের এ কী খেললেন এ বি ডি ভিলিয়ার্স? রীতিমত অতিমানবীয়। এক ইনিংসেই সব রেকর্ড ভেঙ্গে তছনছ করে দিলেন। দ্রুততম হাফ সেঞ্চুরি, সেঞ্চুরি- কোন রেকর্ড বাকি রেখেছেন!শুধুই কী ব্যাক্তিগত! পুরনো সব দলীয় রেকর্ডও ভেঙ্গে খান খান করে দিলেন তিনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শুরুটা করেছিলেন দুই ওপেনার হাশিম আমলা আর রিলে রোশো। এই জুটিই প্রথম রেকর্ড ভাঙ্গেন দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে। প্রোটিয়াদের ওপেনিং জুটিতে আগে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ছিল ২৩৫ রানের। ২০০০ সালে হার্সেল গিবস আর গ্যারি কারস্ট্রেন গড়েছিলেন ওই জুটি। এবার সেটা ভেঙে নতুন মাইলফলক স্থাপন করলেন আমলা আর রোশো।

মাঠে নেমেই রেকর্ড ভাঙার খেলায় মেতে ওঠেন প্রোটিয়া অধিনায়ক ভিলিয়ার্স। ১৬ বলেই হাফ সেঞ্চুরি করে ভাঙেন ২২ বছর আগে (১৯৯৬ সালে) গড়া শ্রীলংকার সনাথ জয়সুরিয়ার ১৭ বলে দ্রুততম হাফ সেঞ্চুরির রেকর্ড। এরপর দুরন্ত গতিতে এগিয়ে যেতে থাকেন তিনি।

FMC-Sports-logo-300x133এবার তার লক্ষ্য দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড ভাঙা। সেটা পেরেছেনও। ৩১ বলেই দ্রুততম সেঞ্চুরি করে এক বছর আগে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যান কোরে এন্ডারসনের গড়া রেকর্ড ভাঙ্গেন তিনি। প্রথম ৫০ রান করেছেন তিনি ১৬ বলে। দ্বিতীয় ৫০ এসেছে ১৫ বলে।

একই সঙ্গে ১৬টি ছক্কা মেরে এক ইনিংসে সর্বাধিক ছক্কা মারার রেকর্ডে ভাগ বসালেন ভিলিয়ার্স। এর আগে এক ইনিংসে ১৬টি ছক্কা মেরেছিলেন ভারতের রোহিত শর্মা। ২০১৩ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওই ইনিংসে ২০৯ রান করেছিলেন রোহিত।

সেঞ্চুরি করেই তো আর থেমে থাকার পাত্র নন ভিলিয়ার্স। আমলার সঙ্গে গড়লেন ১৯২ রানের দ্রুততম এক জুটি। ৬৭ বলে আমলা-ডি ভিলিয়ার্সের গড়া জুটিতে ওভার প্রতি রান এসেছে ১৭.২ করে। টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলোর মধ্যে ১০০ রানের বেশি হয়েছে, এমন জুটি গুলোতে এটাই হচ্ছে সবচেয়ে বেশি স্ট্রাইক রেটের রেকর্ড।

৩০ ওভারের পর ব্যাট করতে নেমে সেঞ্চুরি পাওয়ার রেকর্ড এ নিয়ে দ্বিতীয়বার ভিলিয়ার্সের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই ম্যাচে তো ৩৯তম ওভারেই খেলতে নেমেছিলেন তিনি। এই বিরল কৃতিত্ব শুধুই ডি ভিলিয়ার্সের একার।

সেঞ্চুরি পেতে মাত্র ৪০ মিনিট সময় লেগেছিল ডি ভিলিয়ার্সের। আর হাফ সেঞ্চুরি পেতে তার সময় লেগেছিল মাত্র ১৯ মিনিট।

স্ট্রাইক রেটের ক্ষেত্রেও রেকর্ড গড়েছেন ডি ভিলিয়ার্স। ১৪৯ রান করার ক্ষেত্রে তার স্ট্রাইকরেট ছিল ৩৩৯ করে। যা ৫০ রানের বেশি ইনিংসগুলোর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ এবং এটাই প্রথম ঘটনা যেটাতে ৩০০’রও অধিক স্ট্রাইকরেটে সেঞ্চুরি করেছেন কোন ব্যাটসম্যান।

ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে পরপর তিন ব্যাটসম্যান তিন সেঞ্চুরি পেয়েছেন- এটা এই প্রথম ঘটনা। ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে এর আগে এমন ঘটনা আর ঘটেনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক জ্যাসন হোল্ডার একাই দিয়েছেন ৯৫ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলারদের মধ্যে এটাই ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান হজম করার ঘটনা। এর আগে আর কোন ক্যারিবীয় বোলার ৯০ রানের বেশি হজম করেননি।

এর আগে মাত্র একবার দুই বোলার একসাথে ৯০ রানের বেশি হজম করার ঘটনা ঘটেছিল। সেটা ২০১২ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ব্রায়ান ভিতোরি আর এলটন চিগুম্বুরা দু’জনই ৯০+ রান দিয়েছিলেন। আর এবার ৯০+ রান দিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের হোল্ডার আর জেরোমে টেলর।

৪৩৯ রান, দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়ানডে ইতিহাসে দলীয় সর্বোচ্চ স্কোর। এর আগে একই মাঠে তাদের রেকর্ড ছিল ৪৩৮ রানের, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। যদিও ওয়ানডে ইতিহাসে এটা হচ্ছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড হচ্ছে শ্রীলংকার ৪৪৩, ২০০৬ সালে তারা এই রান করেছিল নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে।

Ambia all-

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

অক্টোবর ২০২১
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১