Sports Bangla

বার্সাকে জিততেও দিলো না!

বার্সাকে জিততেও দিলো না!

বার্সাকে জিততেও দিলো না!
আগস্ট ১৮
০৩:৫১ ২০১৫

Kwality (1)অসম্ভবের সামনে দাঁড়িয়েছিল বার্সেলোনা। প্রথম লেগে ৪-০ গোলে হারের কারণে স্প্যানিশ সুপার কাপ জিততে হলে, ফিরতি লেগে শুধু অ্যাথলেটিক বিলবাওকে হারালেই চলবে না, জিততে হবে অন্তত ৫ গোলের ব্যবধানে। ম্যাচটি ন্যু ক্যম্পে বলে অনেকেই আশায় বুক বেধেছিল, অসম্ভবকে সম্ভব করতেও পারে বার্সা।

কিন্তু, না। চ্যাম্পিয়ন হওয়া তো দুরে থাক, নিজেদের মাঠে অ্যাথলেটিক বিলবাওকে হারাতেও পারলো না লিওনেল মেসিরা। ড্র করতে হয়েছে ১-১ গোলে। ফলে দুই লেগ মিলিয়ে ৫-১ গোলে হেরে বছরের ৫ম শিরেপাটা আর জয় করা হলো না বার্সেলোনার। উল্টো স্প্যানিশ জায়ান্টদের হারিয়ে সুপার কাপের ‘সুপার চ্যাম্পিয়’ হলো বিলবাওই।

মেসি ম্যাজিকের দিকেই তাকিয়েছিল সবাই; কিন্তু না, আর সেই ম্যাজিক দেখা গেলো না। যদিও, ম্যাচে বার্সার পক্ষে একমাত্র গোলটি এসেছিল মেসির পা থেকেই। ৪৩ মিনিটে তার গোলে এগিয়ে গেলো ৭৪ মিনিটে প্রথম লেগের হ্যাটট্রিকম্যান আরিৎজ আদুরিজের গোলে সমতায় ফেরে অ্যাথলেটি বিলবাও। ওই গোলই শেষ পর্যন্ত নিজেদের মাঠে বার্সাকে জয় বঞ্চিত করে দেয়।

Bright-cricket-academy-3বার্সার শিরোপা জয়ের স্বপ্ন অবশ্য ম্যাচ চলাকালীনই শেষ হয়ে যায়। খেলার ৫৬ মিনিটে আদুরিজের অফসাইড নিয়ে লাইন্সম্যানের সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়ে পড়ার জের ধরে বার্সা ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকেকে সরাসরি লাল কার্ড দেখান রেফারি। ফলে ১০ জনের দলে পরিণত হয় স্বাগতিকরা। সুতরাং, শিরোপা জয় যে সম্ভব নয়, তখনই বুঝে গিয়েছিল কাতালান সমর্থকরা। খেলার ৮৬ মিনিটে লাল কার্ড দেখেন অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের পরিবর্তিত খেলোয়াড় কিকে সোলা।

আগের দুই ম্যাচে ৮ গোল হজম করার কারণে এই ম্যাচে গোলরক্ষক পরিবর্তণ করেন লুইস এনরিকে। মার্ক অ্যান্ডার টার স্টেগানের পরিবর্তে ক্লদিও ব্রাভোকেই দায়িত্ব দেন পোস্টের নীচে। এছাড়া আগের দলটিকেই বহাল রাখেন বার্সা কোচ। মামফস ভাইরাসের কারণে নেইমার খেলতে পারেননি। ইনজুরির কারণে ছিলেন না জর্দি আলবাও। অপর দিকে অ্যথলেটিক বিলবাও কোচ নিয়মিত এবং রিজার্ভ বেঞ্চ থেকে নিয়ে মিক্স একটি দলই সাজান।

Milestone-wedding-1-main color৫ গোলের ব্যবধান তৈরীর মানসিকতা নিয়েই মাঠে নেমেছিল বার্সা। যে কারণে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক তারা। ৭ মিনিটে জেরার্ড পিকে গোল পেয়েই গিয়েছিলেন প্রায়। কিন্তু তার শট ফিরে আসে ক্রস বারে লেগে। বাকি সময়টা বার্সার সব চেষ্টাই ফিরে আসে অ্যাথলেটিকের রক্ষণ দেয়াল থেকে।

প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার দুই মিনিট আগে বার্সাকে ব্রেক থ্রু এনে দেন মেসি। সুয়ারেজের পাসকে কাঁধ দিয়ে নিয়ন্ত্রনে নিয়ে খুব কাছ থেকে দারুন এক গোল করেন তিনি। ৫৬ মিনিটে তো লাল কার্ডই দেখতে হয় পিকেকে।

প্রথম লেগে হ্যাটট্রিক করা আদুরিজ এবারও গোল পেলেন। ৭৪ মিনিটে তার পা থেকে আসে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের সমতাসূচত গোলটি। ৮৬ মিনিটে ভয়ঙ্কর এক ট্যাকলের দায়ে কিকে সোলাকে লাল কার্ড দেখান রেফারি।

৩১ বছর পর কোন শিরোপা ঘরে তুলতে পারলো অ্যথলেটিক বিলবাও। ১৯৮৪ সালে সর্বশেষ কোপা ডেল রে শিরোপা জিতেছিল তারা। তাও বার্সেলোনাকে ১-০ গোলে হারিয়ে। অপরদিকে ২০০৯ সালের পর এই বছর ৬টি শিরোপার একেবারে সামনে দাঁড়িয়েছিল বার্সা। কিন্তু; সেই সুযোগটা নষ্ট করলো কাতালানরা। গত মৌসুমে বার্সেলোনার কাছে কোপা দেল রের ফাইনালে হারা বিলবাও মধুর প্রতিশোধ নিয়ে ৩১ বছরের মধ্যে প্রথম শিরোপা জয়ের উচ্ছ্বাসে মাতে।

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০