Sports Bangla

বাংলা ধোলাই পাকিস্তানকে

বাংলা ধোলাই পাকিস্তানকে

বাংলা ধোলাই পাকিস্তানকে
এপ্রিল ২২
১৭:০৮ ২০১৫

ambia flatকেনিয়া, স্কটল্যান্ড আয়ারল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড। এবার এই তালিকায় যোগ হলো পাকিস্তানের নামও। বাংলাওয়াশের শুরুটা হয়েছিল কেনিয়াকে দিয়ে। সর্বশেষ চুনকাম হয়ে গেলো পাকিস্তান। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে এসে সব ক’টিতেই গো-হারা হেরে ৩-০ ব্যবধানে ধবল ধোলাই হলো পাকিস্তান। আনন্দে ভাসছে বাংলাদেশ। পাকিস্তানকে বাংলা ধোলাই করেছে মাশরাফিরা। পাকিস্তানের দেওয়া ২৫১ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ৮ উইকেটের জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।

শেষ ম্যাচের নায়ক যদি হয়ে থাকেন সৌম্য, তাহলে পুরো সিরিজের নায়ক হলেন তামিম ইকবাল। প্রথম ম্যাচে ১৩২ রান করার পর দ্বিতীয় ম্যাচে এসে অপরাজিত থাকলেন ১১৬ রানে। হ্যাটট্রিক সেঞ্চুরির আশায় থাকা তামিম ইকবাল অবশ্য আউট হয়ে গেলেন ৬৪ রানে। তবে, তাতেও সিরিজ সেরা হিসেবে তার সামনে আর বিকল্প থাকার কথা নয়। তিন ম্যাচে ৩১২ রান করে জিতে নিলেন সিরিজ সেরার পুরস্কার।

Kwality (1)পুরস্কার নিতে এসে তামিম প্রথমেই প্রশংসা করলেন মুশফিক আর মাশরাফির। তিনি বলেন, ‘প্রথমেই ধন্যবাদ দেবো মুশি এবং ম্যাশকে। তারা দু’জন অসাধারণ সহযোগিতা করেছে আর মানসিকভাবে সাহস যুগিয়েছে। আর সমর্থকদের অসাধারণ সমর্থন তো ছিলই।’

সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ জয়ের পর বুধবার পাকিস্তানকে বাংলা ধোলাই করতে নেমে দলকে উড়ন্ত সূচনাই দিয়েছেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। দলীয় ১৪৫ রানে আউট হয়েছেন তামিম ইকবাল, ব্যক্তিগত ৬৪ রানে। আর দলীয় ১৫৪ রানে আউট হয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন সৌম্য, অপরাজিত ছিলেন ক্যারিয়ার সেরা ১২৭ রানে। তার সঙ্গী মুশফিকুর রহিম নট আউট ছিলেন ৪৯ রানে। ৩৯.৩ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্য ছুঁয়েছে বাংলাদেশ।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচে পা রাখার পর থেকে এটি বাংলাদেশের জন্য প্রতিপক্ষকে ১০ম হোয়াইটওয়াশ করার ঘটনা।

বুধবার সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে আগে ব্যাটিং করে পাকিস্তান সব ক’টি উইকেট হারিয়ে ৪৯ ওভারে সংগ্রহ করেছে ২৫০ রান।

Exploreওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন দলটির অধিনায়ক আজহার আলী। সেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর ৩৯তম ওভারে সাকিব আল হাসানের বলে ব্যক্তিগত ১০১ রানে বোল্ড আউট হয়েছেন তিনি। পরের ওভারেই মাশরাফির বলে আউট হয়েছেন অপর ব্যাটসম্যান হারিস সোহাইল ব্যক্তিগত ৫৩ রানে। ৪১তম ওভারে ফের বাংলাদেশকে উল্লাসে মাতিয়েছেন সাকিব। মোহাম্মদ রিজওয়ানকে (৪ রান) কট অ্যান্ড বোল্ড করেছেন তিনি। এরপর ৪৪তম ওভারে মাশরাফি তুলে নিয়েছেন ফাওয়াদ আলমের উইকেট। ৪৬তম ওভারে ওয়াহাব রিয়াজকে ফিরিয়ে পাকিস্তানের সপ্তম উইকেটের পতন ঘটিয়েছেন পেসার রুবেল হোসেন। এরপর ৪৭তম ওভারে রান আউট হয়েছেন উমর গুল। আর ৪৮তম ওভারে সাদ নাসিমের উইকেট তুলে নিয়েছেন রুবেল। এরপর ৪৯তম ওভারে জুনায়েদ খানকে আউট করে পাকিস্তানকে ২৫০ রানে বেধে রেখেছেন আরাফাত সানি।

এর আগে আউট হয়েছিলেন মোহাম্মদ হাফিজ। তাকে সরাসরি বোল্ড আউট করে বাংলাদেশকে এই ম্যাচে দ্বিতীয় সাফল্য এনে দিয়েছেন স্পিনার আরাফাত সানি। এর আগে ১৮তম ওভারের শেষ বলে পাকিস্তানী ওপেনার সামি আসলামকে (৪৫ রান) সাজঘরে ফিরিয়েছেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার নাসির হোসেন। বাংলাদেশের পক্ষে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন মাশরাফি, সাকিব, আরাফাত সানি ও রুবেল।

 

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

অক্টোবর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১