Sports Bangla

বর্ণিল এক বিদায়

বর্ণিল এক বিদায়

বর্ণিল এক বিদায়
জুন ০৪
১৪:১৮ ২০১৫

Kwality (1)বার্সেলোনা ছেড়ে চলে যাচ্ছেন জাভি হারনান্দেজ, ঘোষণাটি আগেই দেওয়া, এখন কেবল বিদায়ী আনুষ্ঠানিকতার আর একটি এক ধাপ বাকি। আগামী ৬ জুন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল ম্যাচ শেষে বার্সার জার্সি তুলে রাখবেন জাভি। এরপর পাড়ি জমাবেন মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে। সেখানকার আল-সাদ ক্লাবের জার্সি গায়ে চাপাবেন তিনি। এর আগে জাভির সম্মানে বুধবার রাতে বর্ণিল এক বিদায়ী অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে বার্সেলোনা ক্লাব কর্তৃপক্ষ। প্রিয় ফুটবলারকে বিদায় জানাতে গিয়ে যে অনুষ্ঠানটি হয়ে উঠেছিল অশ্রুভেজা।

জাভির বিদায়ে চোখের জলে ভিজেছেন উপস্থিত সবাই। অশ্রুসিক্ত হয়েছেন জাভি নিজেও। আর এমন অশ্রভেজা রাতেই সকলকে একটি সুখবরও দিয়েছেন বার্সার এই কিংবদন্তি তুল্য ফুটবলার- প্রথমবারের মতো বাবা হতে যাচ্ছেন ৩৫ বছর বয়সী জাভি। চলতি বছরের শেষ দিকে নিজেদের প্রথম সন্তানের জন্ম দিতে চলেছেন জাভির স্ত্রী নুরিয়া কানিলেরা। দুই বছর আগে নুরিয়াকে বিয়ে করেছেন জাভি। বিদায়ী আয়োজনে স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়েই হাজির হয়েছিলেন তিনি।

Explore1জাভির সম্মানে আয়োজিত এই বিদায়ী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বার্সেলোনার বর্তমান ও সাবেক ফুটবলারদের অনেকেই। ছিলেন ক্লাব সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমিউসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরাও। অনুষ্ঠানে না থাকলেও ভিডিও বার্তার মাধ্যমে প্রিয় মানুষটিকে শুভ কামনা জানিয়েছেন তার আত্মীয় ও বার্সা একাডেমির সাবেক সতীর্থরাও। কেবল থাকতে পারেননি জাভির অতি প্রিয় আর্জেন্টাইন ফুটবল সুপারস্টার লিওনেল মেসি। ওই সময়টায় মেসি ব্যস্ত ছিলেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল উপলক্ষে ডোপিং পরীক্ষা দিতে। তবে নিজের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টের মধ্য দিয়ে ঠিকই জাভিকে বিদায়ী সম্মান জানিয়েছেন তিনি।

সেই ১৯৯১ সাল থেকে বার্সার সঙ্গে আত্মার সম্পর্কে বাঁধা পড়েছেন জাভি। ক্লাবটির একাডেমি লা মাসিয়ার ছাত্র ছিলেন তিনি। সেখান থেকেই এক সময় তার জায়গা হয়েছে বার্সার সিনিয়র দলে।

Bright-sports-shop_bigএরপর সময়ের পরিক্রমায় বার্সার অধিনায়কের দায়িত্বে থেকেই বিদায় নিচ্ছেন তিনি। এই সুদীর্ঘ সময়ে বার্সার জার্সিতে সব মিলয়ে মোট ২৪টি শিরোপা জিতেছেন জাভি। বুধবারের অনুষ্ঠানে সেই ২৪ ট্রফির সামনে দাঁড়িয়ে ক্যামেরার সামনে পোজও দিয়েছেন তিনি। অনুষ্ঠানে একে একে জাভির সম্মানে বক্তব্য রেখেছেন বার্তোমিউ, সাবেক অধিনায়ক কার্লোস পুয়লসহও আরও অনেকেই। মঞ্চে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার বক্তব্যই ছিল সবচেয়ে বেশি আবেগপ্রবণ। তার বক্তব্যের সময় অশ্রুসজল হয়ে পড়েন উপস্থিত সবাই। কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন জাভি নিজেও।

তবে চলে গেলেও বুকের গভীরে বার্সেলোনাকে চিরকাল সজীব রাখার ঘোষণা দিয়েছেন জাভি। আর সেই সঙ্গে এও জানিয়ে দিলেন, ‘খুব অল্প দিনের মধ্যে ফের কাতার থেকে বার্সেলোনায় আসছি আমি। কারণ, প্রথম সন্তানের মুখ দেখতে যাচ্ছি আমি আর নুরিয়া। এরপর আর আমরা দুজন নই, কাতারে ফিরে যাব আমরা ৩ জন।’

জাভির প্রতি সর্বোচ্চ সম্মান দেখানোর পাশাপাশি বার্সা সভাপতি বার্তোমিউ জানিয়ে দিয়েছেন, ‘বার্সেলোনার দরজা জাভির জন্য চিরকাল খোলা থাকবে। যখন ইচ্ছে সে ফিরে আসতে পারবে এখানে। জাভিকে বিদায় জানাচ্ছি না আমরা; বরং বলছি, আবার দেখা হবে বন্ধু।’

এদিকে, ভক্তদের মতো জাভি নিজেও তাকিয়ে রয়েছেন ৬ জুনের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের দিকে। নিজের বিদায় ম্যাচে বার্সেলোনাকে আরেকবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জয়ের আনন্দে ভাসাতেন চান তিনি।

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০