Sports Bangla

পূজা মণ্ডপে শচীন

পূজা মণ্ডপে শচীন

পূজা মণ্ডপে শচীন
অক্টোবর 01
16:01 2014

Kwality- Milestoneশচীন টেন্ডুলকারকে অনেক ভারতীয়ই তাদের দেবতা কিংবা ঈশ্বরের সঙ্গে তুলনা করেন। অনেকেই তাকে ভগবানরূপেও মেনে থাকেন। এতদিন এগুলো ছিল মুখের কথা কিংবা শোনা কথা। তবে সত্যি সত্যি যে তারা মাস্টার-ব্লাস্টার শচীনকে ভগবান মেনে থাকেন, তার প্রমাণ দিলেন কলকাতারই কিছু ভক্ত।

দুর্গা পূজা উপলক্ষে কলকাতা শহরের কিছু দূরে অবস্থিত সোনারপুরে ক্রিকেট স্টেডিয়ামের আদলে বানানো হয়েছে পূজা মণ্ডপ। পুরো মণ্ডপকে দেখলেই মনে হবে যেন এটি একটি ক্রিকেট স্টেডিয়াম। যার মধ্যখানে রয়েছে ক্রিকেট পিচ, পাশে গ্যালারি, ডেসিংরুম এবং প্রেসবক্স। শচীনের বিভিন্ন ধরনের মোট ১০টি মূর্তি রয়েছে পুরো মণ্ডপে। এর কোনটিতে শচীনকে দেখা যাচ্ছে ব্যাটিং করতে, কোনটাতে আবার বোলিং কিংবা ফিল্ডিংরত অবস্থায়। এগুলোতেই প্রতিদিন অঞ্জলি দিচ্ছেন অসংখ্য শচীন ভক্ত। রিয়াল কলোনি সার্বজনিন দুর্গা পূজা কমিটি ব্যাতিক্রমী এই আয়োজন করে শচীনের প্রতি তাদের ভালোবাসার বহির্প্রকাশ ঘটিয়েছেন। এই কমিটির অনেকেই আবার শচীন ফ্যান ক্লাবের সদস্য।

সবচেয়ে মজার বিষয় হলো- পূজা মণ্ডপের চারপাশে বসানো হয়েছে ফ্লাড লাইট। এমনিতেই আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। তারসঙ্গে ফ্লাড লাইট! ভক্তরা আবার শচীনের নামে একটি ভক্তিসঙ্গীতও রচনা করে ফেলেছেন। যার কথাগুলো এরকম, ‘মা দুর্গার আরাধনা, সঙ্গে শচীন বন্দনা।’ সারাদিন বাজানো হচ্ছে ওই সঙ্গীতটি। এছাড়া বাজানো হচ্ছে শচীনকে নিয়ে গাওয়া লতা মুঙ্গেশকরের ‘উইথ মি শচীন টেন্ডুকার’ গানটিও। এরই ফাঁকে ফাঁকে বাজানো হচ্ছে রবি শাস্ত্রীর ধারাভাষ্য- যেগুলো তিনি দিয়েছিলেন শচীন টেন্ডুলকারের খেলার সময়। গ্যালারির পাশে বসানো হয়েছে একটি জায়ান্ট স্ক্রিন। যেখানে দেখানো হচ্ছে শচীনের সেঞ্চুরির ভিডিও ফুটেজগুলো।

ব্যতিক্রমী এই আয়োজনের মূল ব্যক্তি, নিলেন্দু বসু বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি শচীনের জীবন এবং সাফল্যের ওপর ফোকাস করতে। যাতে বাংলার কিশোর-তরুণদের মধ্যে একটা উৎসাহ তৈরি হয়।’

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

অক্টোবর ২০২১
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১