Sports Bangla

না ফেরার দেশে মঞ্জুর হাসান

না ফেরার দেশে মঞ্জুর হাসান

না ফেরার দেশে মঞ্জুর হাসান
নভেম্বর ১৮
১৮:০৩ ২০১৪

ambiagroupশুদ্ধ উচ্চারণের সঙ্গে হাসিমাখা বাচনিক কথনে পটু জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার মঞ্জুর হাসান মিন্টু আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। ৭৮ বছর বয়সে তিনি চলে গেছেন না ফেরার দেশে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আকস্মিক এক দুর্ঘটনায় দেশবরেণ্য ধারাভাষ্যকার মঞ্জুর হাসান মিন্টু মৃত্যুবরণ করেছেন পাশ্বর্বতী দেশ ভারতে। জানা গেছে, ভারতের রাজস্থানের রাজধানী জয়পুরে একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মঞ্জুর হাসান মিন্টু সস্ত্রীক আজমির শরীফ জিয়ারত করতে ভারত গিয়েছিলেন। কিন্তু জয়পুর পর্যন্ত যেতে পেরেছিলেন। ওইদিন সন্ধ্যায় হোটেলের বাথরুমে গিয়ে তিনি মারাত্মকভাবে মাথায় আঘাত পেয়েছিলেন। তার মাথাও খানিকটো ফেটে গিয়েছিল। এর পর পরই শুরু হয়েছে বমি। তাঁর স্ত্রী অধ্যাপিকা পারভীন হাসান তাকে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেছেন। মঞ্জুর হাসানের পরিবারের সদস্যরা আরো জানিয়েছেন, সম্প্রতি তিনি মেরুদন্ডে টিউমার অপারেশনের পরবর্তী জটিলতায় ভুগছিলেন। স্ত্রী ও একমাত্র সন্তান হুমায়ূন হাসান পলাশ ছাড়াও অসংখ্য ভক্ত ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন তিনি। তিনি ছিলেন একই সঙ্গে ফুটবল, ক্রিকেট ও হকি খেলোয়াড়।

মঞ্জুর হাসান মিন্টু খুলনার সাতক্ষীরায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি ঐতিহ্যবাহী ঢাকা ওয়ান্ডারার্সের ফুটবলার ছিলেন। তিনি পূর্ব পাকিস্তান জাতীয় দলেও ফুটবল খেলতেন। এছাড়া তিনি ছিলেন ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ব্লুজ পেয়েছেন তিনি। পেশাজীবনে তিনি সিএসপি অফিসার হিসেবে আয়কর কমিশনার ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ ক্রীড়াভাষ্যকার ফোরামের আজীবন সদস্য ছিলেন।

বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনের প্রবীণতম এবং জনপ্রিয় ক্রীড়া ভাষ্যকার মঞ্জুর হাসান মিন্টু ১৯৭৮ সালে ফুটবলের জন্য জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন। দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেছেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কোষাধ্যক্ষ হিসেবে। ১৯৯৪ সালে কেনিয়ায় আইসিসি ট্রফিতে প্রথম মঞ্জুর হাসান মিন্টু ও শামীম আশরাফ চৌধুরী বেতারে ধারাভাষ্য দিয়েছেন। যা আজো ক্রিকেটপাগল বাঙালীদের অনুপ্রাণিত করছে। স্বাধীনাউত্তর বাংলাদেশে আব্দুল হামিদ, আতাউল হক মল্লিকের পরেই মঞ্জুর হাসান মিন্টুকে সেরা মনে করা হয়। তার ভরাট গলায় ধারাভাষ্যে অনেকেই মুগ্ধ হয়েছেন। এই বয়সেও তিনি চলে-ফিরে বেড়াতেন নির্দ্বিধায়। শেরেবাংলা কিংবা বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম—যেখানেই খেলা হয়েছে, মঞ্জুর হাসান মিন্টুকে ছুটে যেতেন।

তার মৃত্যুতে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে। এই কৃতী ক্রীড়াভাষ্যকারের মৃত্যুতে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান শোক প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেণ শিকদার এমপি, যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয় এমপি, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব শিবনাথ রায়, বাংলাদেশ ক্রীড়াভাষ্যকার ফোরামের আলফাজউদ্দিন আহমেদ, শামীম আশরাফ চৌধুরী, ড. সাঈদুর রহমান, সামসুল ইসলাম প্রমুখ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এছাড়া বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশন পরিবার এবং বাংলাদেশ ক্রীড়াভাষ্যকার ফোরাম ও বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতি গভীর শোক প্রকাশ করে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছে।

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০