Sports Bangla

টেন্ডুলকারের আক্ষেপ

টেন্ডুলকারের আক্ষেপ

টেন্ডুলকারের আক্ষেপ
মার্চ ১৪
১৪:৫১ ২০১৫

Exploreক্রিকেট জীবনে তার প্রাপ্তির সীমা নেই। একের পর এক মাইলস্টোন গড়ে হয়ে উঠেছেন কিংবদন্তি। চব্বিশ বছরের ক্রিকেট জীবনে তবু একটা ব্যাপারে আক্ষেপ টেন্ডুলকারের। ক্যাপ্টেন হিসেবে তার ব্যর্থতা। যে কাঁটা নিয়েই বোধহয় সারা জীবন কাটাতে হবে শচিনকে। নয়া দিল্লিতে এক আলোচনাচক্রে শচিন যা বললেন, তাতে কার্যত এ কথাই স্বীকার করে নিলেন দেশের সেরা ক্রিকেট তারকা। একই মঞ্চ থেকে জোর গলায় বললেনও যে, এবারও ভারতেরই বিশ্বকাপ জেতার সম্ভাবনা বেশি।

তার সতীর্থদের কেউ কেউ যখন বছরের পর বছর ভারতীয় দলের ক্যাপ্টেন্সি করেছেন, অনেকে সফলও হয়েছেন, তখন তিনি দু’বারে মোট বাইশ মাসের বেশি দলকে নেতৃত্ব দিতে পারেননি, এটাই শচিনের ক্রিকেটজীবনের বড় আক্ষেপ। এই নিয়ে তার বক্তব্য, “প্রথম বার মাত্র বারো-তেরো মাস পর আমাকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তখন খুব হতাশ হয়েছিলাম। এই ভেবেই এক জন ক্যাপ্টেনকে বাছা হয় যে, সে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। কিন্তু ক্যাপ্টেন যদি যথেষ্ট সময় না পায়, তা হলে তার সাফল্যের হার কিছুই থাকে না। চারটার মধ্যে দুটো ম্যাচ জিতলে সাফল্যের হার দাঁড়ায় ৫০ শতাংশ। যথেষ্ট সময় পাইনি বলে খুব হতাশ হয়েছিলাম।”

Wedding Snaps (11)তার নেতৃত্বের সময়ের সঙ্গে ২০১১-এ ধোনির ভারতের অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড সফরের তুলনাও টানেন শচিন। বলেন, “ক্যাপ্টেন থাকাকালীন কয়েকটা কঠিন সফরে গিয়েছিলাম আমরা। তখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ আমাদের চেয়ে ভালো দল। দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়াতেও কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছিলাম। ২০১১-র ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া সফরে এবং আমার নেতৃত্বে সেই সফরগুলোতে একটা ব্যাপারে মিল ছিল। দু’বারেই আমরা রান তুলতে পারিনি এবং প্রচুর রান দিয়েছি। কোনও ম্যাচে কুড়ি উইকেটও তুলতে পারিনি।”

প্রসঙ্গত, শচিনের নেতৃত্বে ভারত ২৫টি টেস্টের মধ্যে চারটায় জেতে ও নয়টায় হারে। কোনো জয়ই বিদেশের মাটিতে নয়। উল্টো আছে বিদেশে ছ’টি টেস্ট হার।

ভারতের চলতি বিশ্বকাপ জয়ের সম্ভাবনা নিয়ে যথেষ্ট আশাবাদী শচিন। বলেন, “ভারত যা খেলছে, তাতে তো মনে হচ্ছে আমরাই চ্যাম্পিয়ন হবো। ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং সব ভাল করছে ওরা। আমরা কখনও নিজেদের দলকে কৃতিত্ব দিই না। আমি কিন্তু তা দিতে চাই। দক্ষিণ আফ্রিকা ভালো খেলা সত্ত্বেও আমরা ওদের হারিয়েছি। মোহিত শর্মার ভিলিয়ার্সকে রান আউট করাটাই টার্নিং পয়েন্ট। ওই মুহূর্ত থেকেই দলের ছেলেরা জেগে উঠেছে।”

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০