Sports Bangla

রোহিত-রায়নায় পুড়ল বাংলাদেশ

রোহিত-রায়নায় পুড়ল বাংলাদেশ

রোহিত-রায়নায় পুড়ল বাংলাদেশ
মার্চ ১৯
০৬:০৬ ২০১৫

Exploreশুরুতেই দুই ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মা আর ধাওয়ানের ব্যাটিং দেখে মনে হচ্ছিল বড় সংগ্রহের দিকে যাচ্ছে ভারত। আস্তে আস্তে বাড়ছিল রানের সংখ্যা। কিন্তু হঠাৎ করেই পাল্টে গেল সবকিছু। ধোনির ভারতের বিপক্ষে মেলবোর্নের ম্যাচটি বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসে ৩০০তম ওয়ানডে। আর এই ম্যাচ স্মরণীয় করে রাখতে লড়েও শেষ পর্যন্ত আর পারেনি টাইগাররা। মাঝপথে চাপে পড়লেও সেই চাপ কাটিয়ে রোহিত-রায়নার ব্যাটে জ্বলে উঠে ভারত। রোহিতের সেঞ্চুরি আর রায়নার ঝড়ো ব্যাটিং টিম ইন্ডিয়াকে গড়ে দেয় তিনশ রানের ইনিংস। আর এই ইনিংস সামলাতে পারেনি টাইগাররা। ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে তামিম-সাকিব-মাহমুদউল্লাহরা গুটিয়ে গেছেন দ্রুত। রোহিত-রায়নার দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের পর যাদব-সামির বোলিংয়ে শেষ হয়ে গেল মাশরাফি বাহিনীর সেমিফাইনাল স্বপ্নটুকু।

পাল্টা জবাবে স্বভাবজাত ব্যাটিং করে বাংলাদেশকে ভালো সূচনাই এনে দিয়েছিলেন তামিম। চারটি বাউন্ডারিতে ২৫ রান করার পর যাদবের বলে বিতর্কিত কট বিহাইন্ডে আউট হয়ে যান। পরের বলেই দ্রুত রান নিতে গিয়ে রানআউট হয়ে গেলেন ইমরুল কায়েসও। এরপর সৌম্যকে নিয়ে বড় জুটি গড়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন দলের অন্যতম সেরা তারকা মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু ২১ রানে সামির বলে ধাওয়ানের হাতে ধরা পড়েন তিনি। ২৯ রানে সৌম্যকেও ফিরিয়ে দেন সামি। ধ্বস ঠেকাতে পারেনি সাকিব। মাত্র ১০ রান করে জাদেজার বলে ধরা পড়েন সামির হাতে। ২৭ রান করে মুশফিকও যাদবের বলে ধোনির হাতে ক্যাচ দেন। শেষদিকে লড়ে যান নাসির-সাব্বির জুটি। ৩৫ রানে জাদেজার বলে আশ্বিন হাতে ধরা পড়েন নাসির। তারপর মাশরাফি এসেই এক রান করে মোহিত শর্মার বলে ক্যাচ দেন ধোনিকে। নাসিরেরর মতো একইভাবে রুবেল খালি হাতেই ফিরে যান। আর ৩০ রান করা সাব্বির যাদবের বলে সামির হাতে ধরা পড়লে ১৯৩ রানে থেমে যায় মাফরাফিদের সেমিফাইনালে উঠার স্বপ্ন। যাদব ৪টি, সামি আর জাদেজা দুটি করে উইকেট শিকার করেন।

Kwality (1)এর আগে সাকিবের বলে মুশফিক দারুণভাবে স্টাম্পিং করে ওপেনার ধাওয়ানকে ফিরিয়ে দিকে ৭৫ রানে ভেঙে দেন উদ্বোধনী জুটি। সাথে সাথে ভারতের উপর টাইগাররা চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। ৩০ রান করে ধাওয়ান ফিরে যাওয়ার পর বিরাট কোহলি যে এভাবে হতাশ করবেন দলকে, বুঝতে পারেননি ধোনি। আট বল খেলে ৩ রানে রুবেলকে খেলতে গিয়ে ধরা পড়েন মুশফিকের হাতে। এরপর রাহানে। শক্ত হয়ে ক্রিজে থাকতে এসেও পারলেন না। তাসকিন আহমেদের শিকারে পরিণত হন। হাঁকাতে গিয়ে ধরা পড়েন সাকিবের হাতে।

একপ্রান্ত ধরে লড়ছেন রোহিত শর্মা। এবার তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন আরেক নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান সুরেশ রায়না। ধাক্কা সামলে জ্বলে উঠতে শুরু করে এই জুটি। ছুটতে থাকে চার-ছ্ক্কার সাথে রানের গতি। রোহিতের সাথে ব্যাটে ঝড় তুলতে থাকেন রায়না। সাকিবকে মেরে ৪৬ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন। অপর প্রান্তে তখন শতকের কাছে রোহিত। ১০৮ বলে বাংলাদেশ অধিনায়ককে মেরে ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি পূরণ করেন। এরপর রায়না ৫৭ বলে ৬৫ রানের মাথায় মাশরাফিকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ধরা পড়েন মুশফিকের হাতে। তারপর আসেন ক্যাপ্টেন কুল মহেন্দ্র সিং ধোনি। শুধু সঙ্গ দিচ্ছিলেন রোহিতকে। বাকি কাজটা দারুণ করে যাচ্ছিলেন রোহিত। তাসকিনের ইয়র্কারে যখন তার স্টাম্প ভেঙে যায় তখন দলকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন বহুদূর। ১২৬ বলে ১৩৭ রান সাজান ১৪ চার আর তিন ছক্কায়। তারপর ধোনি মাত্র ৬ রানে তাসকিনের বলে নাসিরের হাতে ধরা পড়েন। আর জাদেজা(১০ বলে ২৩) অশ্বিনকে(৩) সাথে করে দলকে ৩০২ রানে নিয়ে যান ইনিংস শেষে।

Ambia 1

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

অক্টোবর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১