Sports Bangla

এই না হলে ডন!

এই না হলে ডন!

এই না হলে ডন!
ফেব্রুয়ারি ১০
১০:২১ ২০১৫

Sportsbangla Quiz_1_1তিনি তখন ৭০৷ চোখে পুরু কাচের চশমা৷ কি তাতে কী? ক্রিকেট মাঠে তিনি যে সম্রাট, তা কি বয়স হলেও নিজে ভুলে গিয়ে থাকতে পারেন? সেই বয়সেও তার তেজ বিন্দুমাত্র কমেনি৷ হেলমেট ছিল না, প্যাডও না৷ শুধু একটা ব্যাট৷ তাতেও পিছিয়ে যাননি৷ সেই অস্ত্রে উড়িয়ে দিয়েছিলেন জেফ টমসনকে৷ এই না হলে ডন ব্র্যাডম্যান!

বিশ্বকাপ উপলক্ষে ভূরিভোজ অস্ট্রেলিয়ায়৷ জ্বরের পারদ ক্রমেই চড়ছে৷ বিশ্বকাপ উপলক্ষে একটি টিভি চ্যানেল আয়োজিত বিশেষ অনুষ্ঠান ‘ক্রিকেট লেজেন্ড’ সিরিজে বল হাতে দেখা যাবে অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন ফাস্ট বোলারকে৷ সেই টমসন কিন্তু এখনও মজে ‘৭০ বছরের ডনের কীর্তিতে৷ মনে করেন, স্যর ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যানই হলেন বিশ্বের সব থেকে সেরা ব্যাটসম্যান, যাকে তিনি বল করেছেন৷ দু’জনের যা বয়সের ফারাক, তাতে ব্র্যাডম্যানকে টমসনের বল করার কথাই নয়৷ তবু ‘বুড়ো’ ব্র্যাডম্যানকে শেষবার বল করার স্মৃতি এখনও টাটকা কিংবদন্তি টমসনের৷ সালটা ছিল ১৯৭৮৷ অ্যাডিলেডে তখন একটা টেস্ট ম্যাচ চলছিল৷ টেস্টের ‘রেস্ট ডে’ তে এক প্রদর্শনী ম্যাচের আয়োজন হয়েছিল৷ যেখানে আমন্ত্রিত ছিলেন ডন এবং টমসন৷

FMC-Sports-logo-300x133ম্যাচের এক সময় সত্তর বছরের ব্র্যাডম্যান যখন ব্যাট হাতে ক্রিজের দিকে হেঁটেছিলেন, তখন তার মাথায় কোনো হেলমেট ছিল না৷ তখন কী ভেবেছিলেন টমসন? তার মুখেই শোনা যাক, ‘আমার মনে হয়েছিল, উনি বেশিক্ষণ ব্যাট করতে পারবেন না৷ বয়স হয়ে গিয়েছে৷ চোখে চশমা৷’ সঙ্গে জুড়ে দিলেন, ‘ওকে দেখে মনে হলো, বেশি জোরে বল করব না৷ বরং লেগ স্পিন করি৷ ভয়ও পেয়েছিলাম, যদি জোরে বল সামলাতে না পেরে ব্র্যাডম্যানের চোট লাগে আর উনি মারা যান, তা হলে সেটা খুব খারাপ হবে৷ সংবাদমাধ্যমও আমাকে ছেড়ে দেবে না!’

টমসন ডুব দিয়েছেন, স্মৃতিতে৷ ‘ব্র্যাডম্যানের মাথায় হেলমেট নেই৷ প্যাড নেই৷ কোনো গার্ড ছাড়া সবুজ উইকেটে একটা ব্যাট হাতে চললেন৷ আমি মনে মনে বললাম, ‘গুড্ লাক ওল্ড ম্যান৷ ইউ উইল বি ডেড শর্টলি৷’

Bright-sports-shop_bigএর পরই বিস্ময় বাঁধ ভাঙে প্রাক্তন ফাস্ট বোলারের৷ দেখতে পান, ৩০ বছর আগে যে লোকটা শেষ টেস্ট খেলেছিলেন, ব্যাট হাতে তার পুরোনো জাদু দেখাচ্ছেন তিনি৷ একটার পর একটা দুর্দান্ত শট মারতে থাকেন বৃদ্ধ ব্র্যাডম্যান৷ টমসনের কথায়, ‘প্রথম বলটা ঠিক ব্যাটের মাঝখান দিয়ে খেললেন৷ আমি ভাবলাম, কপাল জোরে খেলেছেন৷ আরও একটা বল করলাম৷ সেটাতেও দুর্দান্ত একটা শট নিলেন৷ এর পর আমি বসে দেখতে থাকলাম, ২০ মিনিট ধরে জুনিয়র দুই বোলারকে সামলে গেলেন বৃদ্ধ৷’

কিছুক্ষণ থেমে ফের বলে চললেন, ‘আমি আপনাদের হলফ করে বলতে পারি, গ্রেগ চ্যাপেল, ভিভ রিচার্ডস বা ইয়ান চ্যাপেল ওখানে থাকলেও পিছিয়ে যেত৷ কারণ, কোনো প্রোটেক্টিভ গিয়ার ছিল না৷ কিন্তু ব্র্যাডম্যান অন্য জাতের ব্যাটসম্যান৷ ওই সবুজ উইকেটে শুধু ব্যাট হাতে ভেল্কি দেখিয়ে গেলেন৷ এমন কোনও ক্রিকেটীয় শট ছিল না, যা উনি মারেননি৷ আমি তাজ্জব হয়ে যাই৷ নিজের চোখকেই বিশ্বাস হচ্ছিল না!’

টমসন স্বীকার করে নিলেন, ব্র্যাডম্যানই তার জীবনে দেখা সেরা ব্যাটসম্যান, ‘কেউ যদি ব্র্যাডম্যানের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলে, তা হলে সে যেন আমার সঙ্গে দেখা করে’ হাজার হোক, টমসনের বলে শেষ বার খেলেছিলেন ব্র্যাডম্যান৷ আর ব্যাট হাতে নেননি৷ সেবার বেদিরও বল করার কথা ছিল টমসনের সঙ্গে৷ একটা ডিনারে আটকে পড়ায় আসতে পারেননি বলে ভাগ্যকে দোষেন এখনও৷ আর ব্র্যাডম্যান? রাতে ডিনারে টমসনকে বলেছিলেন, ‘ইউ নো জেফ৷ খুব উপভোগ করেছি ব্যাটিংটা৷ তবে আর কোনও দিন এমন খেলব না৷’ টমসন তখনই উপলদ্ধি করেন, তিনিই ডনের জীবনে শেষ বোলার।

Ambia 1

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

অক্টোবর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১