Sports Bangla

আবার সেই লাকি ভেন্যু চট্টগ্রাম

আবার সেই লাকি ভেন্যু চট্টগ্রাম

আবার সেই লাকি ভেন্যু চট্টগ্রাম
জুলাই ১৫
১৭:০৩ ২০১৫

Kwality (1)আবার সেই লাকি ভেন্যু চট্টগ্রাম। যেখানে বার বার সাফল্য ধরা দিয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটে। চট্টগ্রাম অনেক কিছুই উপহার দিয়েছে বাংলাদেশকে। এবার শুধু জয় নয়, শুধু সিরিজ জয়ও নয়, বিরল এক ইতিহাস সৃষ্টি করল বন্দর নগরীর জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম! এখানেই ক্রিকেটের পরাশক্তি দক্ষিণ আফ্রিকাকে সিরিজ হারানোর স্বপ্ন পূরণ করে ইতিহাস গড়ল সাকিব-তামিম-মুস্তাফিজ-সৌম্য-মাশরাফিরা।

টানা তিনটি সিরিজ জয়ও কবে বাংলাদেশ পেয়েছিল? পরিসংখ্যান ঘেঁটে উত্তর বের করার প্রয়োজন নেই। কারণ, সবারই জানা, এখনও পর্যন্ত টানা তিনটি সিরিজ জয়ও পায়নি বাংলাদেশ। সেই অসম্ভবকে সম্ভব করল বাংলার বাঘেরা। আরেকটি প্রোটিয়া বধ গড়ার ইতিহাস উপহার দিল চট্টগ্রামের লাকি ভেন্যু।

টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে নির্ধারিত ৪০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৬৮ রান সংগ্রহ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। জয়ের জন্য বাংলাদেশকে করতে হবে ১৭০ রান। হিসাব মতে ১৬৯ হলেও বৃষ্টি আইনের মারপ্যাচে এক রান বেশিই করতে হবে।

Exploreজয়ের জন্য ১৭০ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে বাংলাদেশকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার আর ঘরের ছেলে তামিম ইকবাল। এই দুজনের দৃঢ়তায় কোনো উইকেট না হারিয়ে টার্গেট প্রায় পূরণ করে ফেলে টাইগাররা। শেষ দিকে ৯০ রানের মাথার সৌম্য ইমরান তাহিরের বলে আমলার হাতে ধরা পড়েন। কিন্তু তখন অনেক দেরি হয়ে গেছে সফরকারীদের। লিটন এসে বাকি পথটুকু সঙ্গ দেন তামিমকে। ৬১ রানে অপরাজিত থেকে লিটনকে সাথে নিয়ে তামিম ৯ উইকেটে ইতিহাস গড়া জয়টি এনে দিল তার প্রিয় ক্রিকেট প্রেমী চট্টগ্রামকে। আর তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ জিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে সিরিজ জয়ের আনন্দে ইতিহাস গড়ে উন্মাতাল গোটা বাংলাদেশ।

ইতিহাস গড়া জয়ের দিনে অসাধারণ এক মাইলফলক স্পর্শ করলেন সাকিব ও মাশরাফি। সাকিব আল হাসান ওয়ানডেতে ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করার পর একই পথে হাঁটলেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশের গলার কাঁটা হয়ে থাকা ডেভিড মিলারকে আউট করে তৃতীয় বাংলাদেশি বোলার হিসেবে উইকেটের ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করলেন তিনি।

Milestone-wedding-1-main colorআবদুর রাজ্জাক প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন। এরপর বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সাকিব আল হাসান দ্বিতীয় এবং একটু পর মাশরাফি তৃতীয় বাংলাদেশি বোলার হিসেবে ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন। ১৫৭তম ম্যাচে মাশরাফি উইকেটের ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন।

১৫৭ ম্যাচের ক্যারিয়ারে পাঁচবার ৪ উইকেট লাভ করেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ২০০৬ সালে কেনিয়ার বিপক্ষে ক্যারিয়ার-সেরা বোলিং করেন তিনি। ২৬ রানের বিনিময়ে ৬ উইকেট লাভ করেন টাইগার দলনায়ক।

দিবারাত্রির এই ম্যাচে টস জিতে শুরুতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক হাশিম আমলা। কিন্তু তার এই সিদ্ধান্তের যৌক্তিকতা প্রমাণ করতে পারেননি দলের ব্যাটসম্যানরা। মাত্র ৫০ রানের মধ্যে টপ অর্ডারের ৪ উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

ambiagroupপ্রোটিয়াস ব্যাটিং লাইনে প্রথম আঘাত হেনেছেন মুস্তাফিজু রহমান। দলীয় ৮ রানে কুইন্টন ডি কককে ফিরিয়ে দিয়ে দারুণ সূচনা করেছেন নবীন এই বাংলাদেশী পেসার। এরপর ব্যক্তিগত দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলেই ফাফ ডু প্লেসিসকে নিজের শিকারে পরিণত করেছেন সাকিব। ডি কক ও প্লেসিস কেউই দুই অঙ্ক ছূঁতে পারেননি।

সেই ধারাবাহিকতায় হাশিম আমলাকে (১৫) সাজঘরে ফিরিয়ে আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে দুশ’তম উইকেট নিয়েছেন সাকিব। অবশ্য সাকিবের আগের ওভারেই আমলার তোলা ক্যাচ মিস করেছিলেন সাব্বির। তবে এবার আর ভুল হয়নি। উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা মুশফিক ক্যাচ তালুবন্দি করেছেন।

দলীয় ৫০ রানে প্রোটিয়াস ব্যাটিং লাইনে বৃষ্টির আগে শেষ আঘাত হেনেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। রিয়াদের বলে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েছেন রিলি রুশো (১৭)। এরপরই বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ হয়ে যায়।

বন্ধ খেলা শুরুর পর প্রথম সাফল্য পেয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। বাংলাদেশ অধিনায়কের বলে সাব্বিরের হাতে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছেড়েছেন ডেভিড মিলার। মিলার ৪৪ রান করেছেন। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের তৃতীয় বোলার হিসেবে আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে ২০০ উইকেট লাভ করেছে নড়াইল এক্সপ্রেসখ্যাত এই পেসার। একই ম্যাচে সাকিবও আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে উইকেটের ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন।

এরপর প্রোটিয়াসদের ব্যাটিং লাইনে ব্যক্তিগত তৃতীয় আঘাত হেনেছেন সাকিব আল হাসান। ফারহান বেহারদিয়েনকে (১২) সাজঘরে ফিরিয়েছেন তিনি। বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে নিয়েছিলেন আরো দুই উইকেটে।

এরপর আবারও মুস্তাফিজ জাদু। বাংলাদেশ সফরে দক্ষিণ আফ্রিকার অন্যতম সফল বোলার রাবাদা এবার পরাস্ত হয়েছেন মুস্তাফিজের কাটারে। দলীয় ১৫৫ রানে সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠ ছেড়েছেন তিনি। শেষ ওভারে রুবেল নিয়েছেন দুটি উইকেট। যার মধ্যে ইনিংস সর্বোচ্চ রান তোলা জেপি ডুমিনিও (৫১) রয়েছেন।

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০