Sports Bangla

অদ্ভূত আউট নিয়ে তোলপাড়

অদ্ভূত আউট নিয়ে তোলপাড়

অদ্ভূত আউট নিয়ে তোলপাড়
সেপ্টেম্বর ০৬
০৯:৫২ ২০১৫

ambiagroupলর্ডসে অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে ব্রিটিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকসের বিতর্কিত রান আউট নিয়ে উত্তাল গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। একই সঙ্গে আরও একবার প্রশ্নের মুখে পড়ে গেলো ক্যাঙ্গারুদের ‘জেন্টলম্যান ক্রিকেট’।

অস্ট্রেলিয়ার করা ৩০৯ রানের জবাবে ব্যাট করছিলেন ব্রিটিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। ২৬তম ওভারের খেলা চলছিল তখন। বোলার অস্ট্রেলিয়ার বাম হাতি পেস মিচেল স্টার্ক। বেন স্টোকস স্ট্রেট ড্রাইভ খেলার পর বল সোজাসুজি বোলার মিচেল স্টার্কের হাতে চলে আসে। বল হাতে পেয়ে কোনও সময় নষ্ট না করে সঙ্গে সঙ্গেই উইকেট লক্ষ্য করে বল ছুড়ে মারেন তিনি।

ক্রিজে ব্যাটিংরত বেন স্টোকস বল থেকে বাঁচতে হাত ছাড়িয়ে মাথা নোয়ান। বলটা লাগে স্টোকসের হাতে। হঠাৎ দেখলে মনে হবে ইচ্ছা করেই বলটি থামাতে চেয়েছেন স্টোকস। কিন্তু, ভালো করে খেয়াল করলে বোঝা যাবে, নিজের শরীর কিংবা মাথা বাঁচাতেই স্টোকসের ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় তার হাতটি বাড়িয়ে ধরেছিল। যে কারণে, বলটি লাগে তার হাতে। ইচ্ছ করে নয়, বরং ঘটনার আকস্মিকতায় হাত বাড়ানোর ঘটনাটি ঘটেছে।

Milestone-wedding-1-main colorআউটের আবেদনে খুব বেশি উচ্চকণ্ঠ ছিলেন অসি উইকেটরক্ষক ম্যথ্যু ওয়েড। তার সাথে যোগ দেন অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথও। মাঠে আম্পায়ার ছিলেন কুমার ধর্মসেনা এবং টিম রবিনসন। আউট নিশ্চিত হতে থার্ড আম্পায়ারের স্মরনাপন্ন হন মাঠের দুই আম্পায়ার। থার্ড আম্পায়ার ছিলেন জোয়েল উইলসন। থার্ড আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত যখন আউটের পক্ষে গেল, তখন লর্ডসের বেলকনিতে দেখা গেলো অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যান বেশ অসন্তুষ্ট।

ক্রিকেটের নিয়মে ইচ্ছাকৃত বল ধরার অপরাধে ‘অবস্ট্রাকসন দ্য বল’ এই নিয়মে আম্পায়ার ব্যাটসম্যানকে আউট দিতে পারেন। আইসিসির ক্রিকেট আইনের ৩৭ ধারাতেই এই আউট সম্পর্কে বিস্তারিত বলা হয়েছে। আম্পায়াররা ওই ধারা মোতাবেকই আউটের ঘোষণা দেন। অনেক যাচাই-বাছাই করার পর আম্পায়াররা আউট দিলেনও; কিন্তু প্রশ্ন উঠে গেছে এখানেই। বেন স্টোকস কি ইচ্ছাকৃতভাবে বলটি ধরতে চেয়েছিলেন? না কি সেই মুহূর্তে বল থেকে নিজেকে বাঁচাতে গিয়ে আচমকাই বলটি তার হাতে লেগে যায়! আর এখানেই চলে আসে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের খেলোয়াড়সুলভ আচরণের প্রসঙ্গ।

আম্পায়ার হয়তো নিয়মের বাইরে যেতে পারেন না; কিন্তু বিশ্ব ক্রিকেট ‘স্পোর্টিং স্পিরিট’ বলতে যা বোঝায়, তাতে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথই একটা ভুমিকা নিতে পারতেন। তিনি তা না নেওয়ায় এই বিতর্কিত রান আউট ‘স্পোটিং স্পিরিটের’ সেই ধারণাকেই ভেঙে দিচ্ছে। অনেকে মনে করছেন অস্ট্রেলিয়ানদের আগ্রাসী মনোভাব তাদের ‘জেন্টলম্যান ক্রিকেটশিপে’ প্রশ্ন চিহ্ন তুলে দিচ্ছে।

ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে ‘অবস্ট্রাকসন দ্য বল’ নিয়মে আউট হওয়া স্টোকস হলেন ৬ষ্ঠ ব্যাটসম্যান এবং ইংল্যান্ডের ইতিহাসে প্রথম। ম্যাচের পর মরগ্যান বলেন, ‘আমরা যদি ফিল্ডিংয়ে থাকি তাহলে দেখি এসব নিয়মের কিছুই প্রয়োগ করা হয় না। আমাদের ক্ষেত্রে ভিন্ন অনেক কিছুই ঘটে। আমি মনে করি, স্বাভাবিকভাবেই নিজেকে রক্ষার জন্য হাত দিয়েছিলেন স্টোকস। অথচ, তাকে এ ঘটনায় দেয়া হলো আউট। এটা খুবই হতাশাজনক।’

মাঠের আম্পায়াররাও না কি আউট দেয়ার পক্ষে ছিলেন না। কুমার ধর্মসেনাই মরগ্যানকে বলেছেন কথাটা। মরগ্যানই বলেন, ‘আমাকে কুমার বলেছেন যে, তারা এটাকে আউট দিতে চাননি; কিন্তু থার্ড আম্পায়ার তাদের সঙ্গে একমত হননি। বরং, আইসিসির নিয়ম অনুসরণ করেই তিনি আউটের সিদ্ধান্ত দেন। আমি মনে করি, বলটা খুব দ্রুতই থ্রো হয়েছিল। আর এমন বল থেকে বাঁচতে হলে এভাবেই হাত দিতে হয়। সুতরাং, এটাকে কোনভাবেই আউট দেওয়া যায় না।’

লেখক সম্পর্কে

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

স্পোর্টসবাংলা ডেস্ক

এই ধরনের আরো লেখা

০ মন্তব্য

এখনো কোনো মন্তব্য আসেনি!

এই মুহূর্তে এখানে কোনো মন্তব্য নেই, আপনি কি একটি মন্তব্য দেবেন?

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

ডিসেম্বর ২০২০
সোমমঙ্গলবুধবৃহস্পতিশুক্রশনিরবি
« আগস্ট  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১